জিএসএম ও সিডিএমএ এর মধ্যে পার্থক্য কী?

জিএসএম (GSM) ও সিডিএমএ (CDMA) এর মধ্যে পার্থক্য

জিএসএম (GSM)

  1. উত্তম সদ্ব্যবহারের জন্য GSM এর ব্যান্ডউইথকে টাইম স্লটে ভাগ করা যায়।
  2. GSM অনেক বেশি পরিণত প্রযুক্তি হওয়ার কারণে শক্তিশালী ফিচারসহ অনেক বেশি স্থায়ী নেটওয়ার্ক পাওয়া যায়।
  3. GSM প্রযুক্তির ফিক্সড সেল সাইট রেঞ্জ হচ্ছে সর্বোচ্চ ৩৫ কিলোমিটার।
    GSM প্রযুক্তিতে কলের খরচ তুলনামূলকভাবে বেশি।।
  4. আন্তর্জাতিক রোমিং সুবিধা পাওয়া যায় ।
    বিশ্বের শতকরা ৮০ ভাগ ব্যবহারকারী GSM প্রযুক্তি ব্যবহার করে।
  5. GSM প্রযুক্তির হ্যান্ডসেটগুলো তুলনামূলক বেশি শক্তিতে ট্রান্সমিট হওয়ার কারণে ব্যাটারির আয়ু কম থাকে, টক টাইম ও স্ট্যান্ডবাই টাইম কমে আসে।
  6. বাজারে বৈচিত্র্যপূর্ণ ও বিভিন্ন ব্র্যান্ডের GSM হ্যান্ডসেট পাওয়া যায়।

 

আরও পড়ুন:

জিএসএম কি? জিএসএম এর বৈশিষ্ট, সুবিধা-অসুবিধা

সিডিএমএ কি? সিডিএমএ এর বৈশিষ্ট, সুবিধা-অসুবিধা

 

সিডিএমএ (CDMA)

  1. CDMA প্রযুক্তির প্রতিটি ব্যবহারকারীর জন্য ইউনিক বা আলাদা একটি ইউনিক কোড ও ব্যান্ডউইথ বরাদ্দ করা হয়।
  2. CDMA তুলনামূলক নতুন একটি প্রযুক্তি। এটি GSM এর মতো ততটা পরিপক্ক নয়।
  3. CDMA এর বিস্তৃত স্পেকট্রাম সিগন্যাল অনেক বেশি কভারেজ প্রদান করে।
  4. CDMA প্রযুক্তির কলের খরচ জিএসএম এর চেয়ে কম।
  5. আন্তর্জাতিক রোমিং সুবিধা পাওয়া যায় না।
  6. সীমিত সংখ্যক অপারেটর CDMA প্রযুক্তি ব্যবহার করে।
  7. সাধারণত CDMA হ্যান্ডসেটগুলো স্বল্প শক্তিতে ট্রান্সমিট হয় যার কারণে ব্যাটারির আয়ু দীর্ঘ হয়, দীর্ঘ টক টাইম ও স্ট্যান্ডবাই টাইম পাওয়া যায়।
  8. বাজারে CDMA সার্ভিসের জন্য বিভিন্ন হ্যান্ডসেট পাওয়া গেলেও এক্ষেত্রে খুব বেশি বৈচিত্র্য নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button