৪৩তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষার সময়সূচি প্রকাশ

৪৩তম বিসিএস

লিখিত পরীক্ষার সময়সূচি প্রকাশ-

৪৩তম বিসিএস এর লিখিত পরীক্ষার সময় সূচি প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)। আগামী ২৪ জুলাই থেকে ৪৩তম বিসিএস এর লিখিত পরীক্ষা শুরু হবে । যা চলবে ৪ আগস্ট পর্যন্ত।

২৪ ফেব্রুয়ারি (বৃহস্পতিবার) বিকালে ৪৩তম বিসিএস এর লিখিত পরীক্ষার সময় সূচি সংক্রান্ত এক বিজ্ঞপ্তিতে এতথ্য জানিয়েছে বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)।

৪৩তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ-

২০২০ সালের ৩০ নভেম্বর ৪৩তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)।  পরে পরীক্ষার্থীদের প্রাথমিক আবেদন শুরু হয় ৩০ ডিসেম্বর।  আবেদন শেষ হয় ৩১ মার্চ ।

৪৩তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা

২০২১ সালের ২৯ অক্টোবর ৪৩তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এদিন দেশের আটটি বিভাগীয় শহরে একযোগে এই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এ পরীক্ষায় আবেদন করে ৪ লাখ ৪২ হাজার ৮৩২ জন পরীক্ষার্থী। যা বিসিএসের ইতিহাসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ আবেদনের রেকর্ড।

৪৩তম বিসিএসের মোট শূন্যপদ

৪৩তম বিসিএস হবে সাধারণ (জেনারেল)। এ বিসিএসে মোট ক্যাডারে ১ হাজার ৮১৪ জনকে নিয়োগ দেওয়া হবে। তবে, ১ হাজার ৮১৪ জনের মধ্যে ৮৪৩ শিক্ষা ক্যাডারে নিয়োগ দেওয়া হবে।

এছাড়া, পররাষ্ট্র ক্যাডারে নিয়োগ দেওয়া হবে ২৫ জনকে, প্রশাসন ক্যাডারে নিয়োগ দেওয়া হবে ৩০০ জনকে, পুলিশ ক্যাডারে নিয়োগ দেওয়া হবে ১০০ জনকে, হিসাব নিরীক্ষক হিসাবে ৩৫ জনকে নিয়োগ দেওয়া হবে, সমবায়ে ২০ জনকে নিয়োগ দেওয়া হবে, ট্যাক্সে ১৯ জন, কাস্টমসে ১৪ জন ও ডেন্টাল সার্জন পদে ৭৫ জনসহ অন্যান্য ক্যাডারে আরও ৩৮৩ জন।

প্রিলিমিনারি ও লিখিত পরীক্ষার বিষয়ভিত্তিক সিলেবাস-

প্রিলিমিনারি পরীক্ষার বিষয়ভিত্তিক সিলেবাস

বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে থাকবে ৩৫ নম্বর।

ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্যে থাকবে ৩৫ নম্বর।

বাংলাদেশ বিষয়াবলিতে থাকবে ৩০ নম্বর।

আন্তর্জাতিক বিষয়াবলিতে থাকবে ২০ নম্বর।

সাধারণ বিজ্ঞান থাকবে ১৫ নম্বর।

গাণিতিক যুক্তিতে থাকবে ১৫ নম্বর।

মানসিক দক্ষতায় থাকবে ১৫ নম্বর।

পরিবেশ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনায় থাকবে ১০ নম্বর।

কম্পিউটার ও তথ্যপ্রযুক্তিতে থাকবে ১৫ নম্বর।

নৈতিকতা, মূল্যবোধ ও সুশাসনের ওপর ১০ নম্বর থাকবে।

 

লিখিত পরীক্ষার বিষয়ভিত্তিক সিলেবাস-

সাধারণ ক্যাডারের জন্য লিখিত পরীক্ষায়-

বাংলা বিষয়ে থাকবে ২০০ নম্বর।

ইংরেজি বিষয়ে থাকবে ২০০ নম্বর।

বাংলাদেশ বিষয়াবলিতে থাকবে ২০০ নম্বর।

আন্তর্জাতিক বিষয়াবলিতে থাকবে ১০০ নম্বর।

গাণিতিক যুক্তি ও মানসিক দক্ষতা বিষয়ে থাকবে ১০০ নম্বর (মানসিক দক্ষতা পরীক্ষায় ৫০টি এমসিকিউ প্রশ্ন থাকবে। প্রতিটি প্রশ্নের মান ১ নম্বর। প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য .৫০ নম্বর করে কাটা যাবে) ।

সাধারণ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ে থাকবে ১০০নম্বর

আর মৌখিক পরীক্ষা হবে ২০০ নম্বরের।

বি.দ্র. প্রফেশনাল বা টেকনিক্যাল ক্যাডারের প্রার্থীদের বাংলায় ২০০ নম্বরের পরিবর্তে ১০০ নম্বর এবং সাধারণ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ের পরিবর্তে সংশ্লিষ্ট পদের প্রাসঙ্গিক বিষয়ে ২০০ নম্বরের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button