স্মার্টফোন বিস্ফোরণের কারণ ও সতর্কতা

কেন স্মার্টফোনে বিস্ফোরণ হয়

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, খবরের কাগজে প্রায়ই স্মার্টফোন বিস্ফোরণের খবর শোনা যায়। কখনো ফোন চালানোর সময়, কখনো পকেটে বা ব্যাগে থাকা অবস্থায়, কখনো ফোন চার্জের সময়। স্মার্টফোন বিস্ফোরণের কারণে অনেকে হাতের আঙ্গুল হারিয়েছে, অনেকে চোখে আঘাতাপ্রাপ্ত হয়েছে ইত্যাদি।

স্মার্টফোন যতই স্মার্ট হোক না কেন ইলেকট্রনিক এসব ডিভাইসের ব্যাটারি বিস্ফোরণের জন্য সংবেদনশীল। Samsung’s Galaxy Note 7 এর কথা আমরা কমবেশি সকলেই জানি। যে ফোন দিয়ে ৩৫টিরও বেশি বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। তারপর Samsung বাজার থেকে ফোনটি তুলে নিতে বাধ্য হয়। স্মার্টফোন বিস্ফোরণের কিছু ঘটনা মৃত্যুর কারণও হয়ে দাঁড়ায়।
মূলত কিছু কারণে স্মার্টফোন বিস্ফোরণ হয়। আজকের পোস্টে যে কারণে মোবাইল বিস্ফোরণ ঘটে সে বিষয়টি সম্পর্কে জানবো। তাহলে চলুন শুরু করি…..

 

যে কারণে ফোনের ব্যাটারি বিস্ফোরিত হয়

মোবাইল উৎপাদনে ত্রুটি

স্মার্টফোন বিস্ফোরণের প্রধান কারণ হলো ত্রুটিযুক্ত প্রোডাক্ট। লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারি যা মোবাইল ফোনকে শক্তি জোগায়। কিন্তু তা বাজারে আনার আগে সঠিকভাবে পরীক্ষা নিরীক্ষা করা প্রয়োজন। একটি ভুল উপাদানের ব্যাটারি ত্রুটিযুক্ত হতে পারে। ঘটতে পারে নানা দূর্ঘটনা। সস্তা ব্যাটারিতে শর্টসার্কিট হওয়ার সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি থাকে।

 

আরও পড়ুন:

মোবাইল ফোন কি? মোবাইল ফোনের জনক, বৈশিষ্ট্য, সুবিধা ও অসুবিধা

ই-সিম কী? ই-সিমের সুবিধা ও অসুবিধা এবং ব্যবহারের নিয়ম

মোবাইল বা সেলুলার ফোন কি? মোবাইল ফোন কত প্রকার ও কী কী?

 

থার্ড পার্টি চার্জারের ব্যবহার

অনেক মানুষ নিজের ফোনের চার্জার ব্যবহার না করে অন্য ফোনের চার্জার ব্যবহার করেন। এ ভুলটি হতে পারে একজন ব্যক্তির মৃত্যুর কারণ। কারণ, প্রতিটি ফোনের জন্য আলাদা আলাদা বোল্টের চার্জার ডিজাইন করা হয়। এক ফোনের চার্জার অন্য ফোনে ব্যবহার করলে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটতে পারে।

 

রাত্রিকালীন চার্জিং

মোবাইল ফোনের ব্যাটারি অতিরিক্ত গরম হওয়ার প্রধান কারণ হচ্ছে রাত্রিকালীন চার্জিং। অনেকে রয়েছেন যারা রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে ফোন চার্জে দিয়ে ঘুমাতে যান। এতে করে ফোনে সম্পূর্ণ চার্জ হওয়ার পরেও ব্যাটারি লোড নিতে থাকে। ব্যাটারির ওপর অতিরিক্ত চাপের কারণে ব্যাটারি মাত্রাতিরিক্ত গরম, শর্টসার্কিট ও বিস্ফোরণের কারণ হতে পারে।

তবে, বর্তমানে বাজারে অনেক স্মার্টফোন রয়েছে যেগুলো ১০০ শতাংশ চার্জ হওয়ার পর বিদ্যুৎ প্রবাহ বন্ধ করে দেয়। কিন্তু বাজারে এখনো অনেক সাশ্রয়ী মূল্যের হ্যান্ডসেট রয়েছে যেগুলোতে এ ফিচারটি নেই।

প্রসেসরের মাত্রাতিরিক্ত তাপমাত্রা

স্বাভাবিকভাবেই প্রসেসর মোবাইল ফোনকে গরম করতে ভূমিকা রাখে। চিপসেট এমনকি সবচেয়ে শক্তিশালী, মাল্টি-টাস্কিং ও পাবজির মতো ভারি গ্রাফিক্সের অ্যাপ চালানোর তাপজনিত সমস্যা রয়েছে। এটিকে নিয়ন্ত্রণ করতে ওএম স্মার্টফোনগুলোতে থার্মাল লক বা থার্মাল পেস্ট ফিচার রয়েছে। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই থার্মাল লক ফেইল হয়ে ফোনের বিস্ফোরণ ঘটে।

 

আরও পড়ুন:

কম্পিউটার কাকে বলে? কম্পিউটারের বৈশিষ্ট্য, প্রকারভেদ ও ব্যবহার

ইন্টারনেট কাকে বলে? ইন্টারনেট কত প্রকার? সুবিধা ও অসুবিধা

 

ফোনে তরল প্রদার্থ প্রবেশ

কোন তরল পদার্থ থেকে মোবাইল ফোনের ব্যাটারির নষ্ট বা ক্ষতি হতে পারে। তাই মোবাইল ফোনে কোনোভাবে পানি বা তরল পদার্থ প্রবেশ করলে দ্রুত সার্ভিস সেন্টারে নিয়ে যান।

 

হাত থেকে ফোন পড়ে যাওয়া

হাত থেকে মোবাইল ফোন পড়ে যাওয়া কোনো নতুন ঘটনা নয়। সবার সাথেই কম বেশি এমনটি ঘটেছে। অনেকে রয়েছেন যারা ভাঙা মোবাইল দীর্ঘদিন ব্যবহার করেন । এ ভুল কখনোই করবেন না। কারণ, যে কোন সময় দূর্ঘটনা ঘটতে পারে।

 

সরাসরি সূর্যালোকে ফোন রাখা

মোবাইল ফোনের ব্যাটারি অতিরিক্ত তাপ নষ্ট করে দিতে পারে। অতিরিক্ত তাপের ফলে ব্যাটারির কোষ কিছুটা এলোমেলো হয়ে এক্সোথার্মিক ভেঙে যায়। এক্সোথার্মিক ভেঙে গিয়ে অক্সিজেন ও কার্বন ডাই অক্সাইডের মতো গ্যাস উৎপন্ন করে। এ গ্যাসের কারণে মোবাইলের ব্যাটারি ব্যাটারি ফুলে যায়, ব্যাটারির গঠন বিকৃত হয় এবং শেষ পর্যন্ত ফোন বিস্ফোরিত হতে পারে।

 

আরও পড়ুন:

জিএসএম কি বা কাকে বলে? জিএসএম এর বৈশিষ্ট, সুবিধা-অসুবিধা

সিডিএমএ কি বা কাকে বলে? সিডিএমএ এর বৈশিষ্ট, সুবিধা-অসুবিধা

জিএসএম ও সিডিএমএ এর মধ্যে পার্থক্য কী?

 

অনুমোদনহীন সার্ভিস সেন্টারে কাজ করানো

মোবাইল ফোনের ব্যাটারি খারাপ হওয়ার আরেকটি কারণ হচ্ছে অনুমোদনহীন সার্ভিস সেন্টারে ফোন ঠিক করানো। অনেকে মনে করেন অনুমোদনহীন সার্ভিস সেন্টারে ফোন ঠিক করালে খরচ কম হয়। কিন্তু এটা ভাবেন না এতে আপনার ফোনের লাভের চেয়ে ক্ষতি বেশি হচ্ছে।

স্মার্টফোন বিস্ফোরিত হওয়ার অনেক কারণ রয়েছে। তার মধ্যে, উপরে উল্লেখিত কারণগুলো অন্যতম। যদিও স্মার্টফোনের বিস্ফোরণে অল্প সময় আগুন স্থায়ী হয়। তবুও সতর্ক থাকা উচিত।

 

ফোনের বিস্ফোরণ এড়াতে করণীয়

  • স্মার্টফোনের ব্যাটারি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে কিনা লক্ষ্য করুন। যদি মনে হয় কোন সমস্যা রয়েছে আশপাশ কাস্টমার সার্ভিসে যান।
  • কম দামে কখনো কোন ফোন ঠিক করাবেন না। কারণ, কম ফোনে কোন ফোন ঠিক করালে আপনার ফোনে কম দামের জিনিস লাগিয়ে দিবে। যা শর্ট সার্কিট হতে পারে।
  • চার্জিং করার সময় সাবধান হন। শতভাগ চার্জ হলে চার্জার থেকে ফোন খুলে ফেলুন। অযথা বার বার চার্জে দিবেন না।
  • ফোনকে পানি থেকে সবসময় দূরে রাখুন।
  • প্রচণ্ড গরম হলে ফোন চার্জ করবেন না্।
  • চার্জ করার সময় মোবাইল বালিশের নিচে বা মাথার কাছে না কখনও রাখবেন না।

#########

আজকের এই পোস্টে আমরা স্মার্টফোন স্মার্টফোন বিস্ফোরণের কারণ ও তার প্রতিকার সম্পর্কে জানতে পারলাম। যেহেুতু
যে কারণে মোবাইল বিস্ফোরণ ঘটে সে বিষয়টি জানতে পেরেছি তাই এবার থেকে ফোন চালানোর বিষয়ে আরও সতর্ক হবো। না হলে ঘটতে পারে বড় দূর্ষটনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button