ভিডিও কনফারেন্সিং কি? ভিডিও কনফারেন্সিং এর সুবিধা

ভিডিও কনফারেন্সিং এর জন্য প্রয়োজনীয় উপকরণ

ভিডিও কনফারেন্সিং কি অথবা ভিডিও কনফারেন্সিং কাকে বলে?

Video Conferencing এমন এক ব্যবস্থা যেখানে প্রযুক্তি ব্যবহার করে একাধিক ব্যক্তি স্বশরীরে সাক্ষাৎ না করেও ভিডিওর মাধমে একে অপরকে দেখে কথোপকথনে করতে পারে। ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে দেশ বিদেশের যে কোন স্থান থেকে যে কোন সভায় অংশগ্রহণ করা যায়। যোগাযোগের ক্ষেত্রে এ এ পদ্ধতি নতুন সম্ভাবনা তৈরি করেছে। সহজ করে দিয়েছে মানুষের অনেক কাজ।

সহজ ভাষায় বলতে গেলে, ভিডিও কনফারেন্সিং (Video Conferencing) হলো একসারি ইন্টারঅ্যাকটিভ টেলিযোগা‘যোগ প্রযুক্তি যেগুলো একাধিক অবস্থান হতে নিরব‘চ্ছিন্ন দ্বিমুখী অডিও ও বিডিও সম্প্রচারের মাধ্যমে একত্রে যোগাযোগ স্থাপন করার সুযোগ প্রদান করে।

একে ‘ভিজ্যুয়াল কোলাবোরেশন’ নামে‘ও অভিহিত করা হয়। মাইক্রোসফট নেটমিটিং একটি জনপ্রিয় ভিডি’ও কনফারেন্সিং সফটওয়্যার।

ভিডিও কনফারেন্সিং এর জন্য প্রয়োজনীয় উপকরণ

  • ইন্টারনেট সংযোগ।
  • ওয়েবক্যাম।
  • মডেম।
  • মাল্টিমিডিয়া কম্পিউটার।
  • মাইক্রোফোন।
  • টেলিফোন সংযোগ।
  • ভিডিও ক্যাপচার কার্ড।
  • প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার সমূহ ।

আরও পড়ুন-  অনলাইনে ট্রেনের টিকিট কাটার নিয়ম 

 

ভিডিও কনফারেন্সিং এর গুরুত্ব দিন দিন বৃদ্ধি পাবার কারন কি?

ভিডিও কনফারেন্সিং এর গুরুত্ব দিন দিন বৃদ্ধি পাওয়ার কারণ-

ভিডিও কনফারেন্সিং এর গুরুত্ব দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। কেননা, Video Conferencing এর মাধ্যমে যে কোন ব্যক্তি যে কোন জায়গায় বসে স্বশরীরে উপস্থিত না হয়ে ভিডিওর মাধ্যমে গুরত্বপূর্ণ কাজ সম্পাদন করতে পারছে। বিশেষ করে, দূরে অবস্থানরত রোগীরা এক দেশ থেকে অন্য দেশের বিশেষজ্ঞ ডাক্তারদের নিকট পরামর্শ নিতে পারছে। এক স্থানে অবস্থান করে ভিডিওর মাধ্যমে অন্য স্থানে ডাক্তার দেখানোকে টেলিমেডিসিন বলে। মূলত, এক স্থানে অবস্থান করে ভিডিওর মাধ্যমে অন্য স্থানে সেবার পাওয়ার জন্যই ভিডি’ও কনফারেন্সিং এর গুরুত্ব দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে।

ভিডিও কনফারেন্সিং এর সুবিধা

  • যাতায়াতের জন্য সময় অপচয় হয়না, অর্থ খরচ হয়না।
  • বিশ্বের যেকোনো জায়গায় বসে সভায় অংশগ্রহন করা যায়।
  • ঘরে বসেই অভিজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া যায়।
  • কোন স্থানে থাকা ও খাওয়ার প্রয়োজন হয়না।
  • ভিডি’ও কনফারেন্সিং এ রেকর্ড করা যায়। ফলে সভায় অংশগ্রহন না করেও যেকোনো সময় রেকর্ড চালু করে সভার সিদ্ধান্ত জানা যায়।
  • শিক্ষা ও স্বাস্থ্য খাতে ভিডি’ও কনফারেন্সিং ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়।

বর্তমান সময়ের কয়েকটি জনপ্রিয় ভিডিও কনফারেন্সিং সফটওয়্যার

জনপ্রিয় ভিডি’ও কনফারেন্সিং অ্যাপ- 

Zoom (জুম)বর্তমান সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় অনলাইন ভিডিও মিটিং এর একটি প্লাটফর্ম হলো Zoom (জুম)। এটি তৈরি করেছে যুক্তরাষ্ট্রের জুম ভিডিও কমিউনিকেশন্স ইঙ্ক। এই প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে ভিডিও কলে কথা বলা, স্কিন শেয়ার ও অনলাইন চ্যাটিং করা যায়।

Google Meet (গুগল মিট): বর্তমান সময়ের আরেকটি জনপ্রিয় অনলাইন ভিডিও মিটিং এর প্লাটফর্ম হলো Google Meet (গুগল মিট)।  জিমেইল একাউন্টধারীদের এটি ফ্রি ভিডিও কনফারেন্সিং সেবা প্রদান করে। এর মাধ্যমে একসাথে ১০০ জন মিটিং এ অংশ নিতে পারে।

Skype (স্কাইপি): Skype (স্কাইপি) একটি ফ্রি ভিওআইপি সফটওয়্যার। এর মাধ্যমে অডিও, ভিডিও, চ্যাটিং সুবিধার পাশাপাশি  এক কম্পিউটার থেকে অন্য কম্পিউটারে বিনামূল্যে কথা বলা যায়।

Viber (ভাইবার): ভাইবার (Viber) একটি অনলাইন ভিডিও মিটিং এর প্লাটফর্ম। জাপানিজ কোম্পানি Rakuten এটি তৈরি করেছে। এর মাধ্যমে বিনামূল্যে কথা বলা, মেসেজ প্রদান করা, ছবি বা ভিডিও আদান- প্রদান করা ইত্যাদি সুবিধা পাওয়া যায়।

WhatsApp (হােয়াটসঅ্যাপ): যাদের স্মার্টফোন রয়েছে তাদের কাছে একটি জনপ্রিয় অনলাইন ভিডিও মিটিং এর প্লাটফর্ম হলো WhatsApp। এটির মাধ্যমে ফ্রি তে কথা বলা, ছবি বা ভিডিও আদান- প্রদান করা যায়।

Facebook Messenger (ফেসবুক মেসেঞ্জার): ফেসবুক মেসেঞ্জার একটি জনপ্রিয় প্ল্যাটফরম।  এটির মাধ্যমে ফ্রি তে কথা বলা, ছবি বা ভিডিও আদান- প্রদান করা যায়।

Imo (ইমো): ইমো একটি জনপ্রিয় মেসেঞ্জার অ্যাপ যার মাধ্যমে ফ্রি তে কথা বলা, ছবি বা ভিডিও আদান- প্রদান করা যায়।

 

####

 

পোস্টটি ভালো লাগলে অন্যদের সাথে শেয়ার করার অনুরোধ রইল। একইসাথে , এরকম তথ্য পেতে  ভিজিট করুন eduwatchbd.com .

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button