পরিভাষা কি? পারিভাষিক শব্দ কাকে বলে?

পারিভাষিক শব্দের প্রয়োজনীয়তা

পরিভাষা কি বা পারিভাষিক শব্দ বলতে কী বোঝায়?

পারিভাষিক শব্দ কাকে বলে বা পরিভাষা কি এই বিষয় গুলো নিয়ে নানা রকম প্রশ্ন থেকেই যায়। কিন্তু পরিভাষা বাংলা ব্যাকরনের গুরুত্বপূর্ন একটি অধ্যায়। আমরা আজকে পরিভাষা সংক্রান্ত সকল প্রশ্নের উত্তর জানব।

সভ্যতার সমৃদ্ধির সাথে সাথে পৃথিবীতে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন শব্দ সৃষ্টি হচ্ছে। বাংলা ভাষায় ব্যবহৃত নতুন সৃষ্ট বিদেশি শব্দ কিংবা বিদেশি শব্দের ভাবানুবাদমূলক বাংলা প্রতিশব্দই পরিভাষা বা পারিভাষিক শব্দ।

শাব্দিক বিশ্লেষণ করলে দেখা যায় যে, ‘ভাষা’ শব্দটির আগে ‘পরি’ উপসর্গ যুক্ত হয়ে ‘পরিভাষা’ শব্দটি গঠিত হয়েছে। এর আক্ষরিক অর্থ হল ‘বিশেষ ভাষা’। মূলত পারিভাষিক শব্দ বা পরিভাষার অর্থ হল কোনো ভাষায় বিশেষ অর্থে ব্যবহারযোগ্য শব্দ। তাই সকল পরিভাষা শব্দ হলেও সকল শব্দ পরিভাষা নয়।

আবার, অনেকে মনে করেন যে, ‘পরিভাষা’ শব্দটি ‘ভাষা’ শব্দের পূর্বে ‘পরি’ উপসর্গ যুক্ত হয়ে গঠিত হলেও এর অর্থ সংক্ষেপার্থ শব্দ। অর্থাৎ যে শব্দের দ্বারা সংক্ষেপে কোনো বিষয় বা বস্তুকে নির্দিষ্টভাবে বুঝানো যায় তা-ই পরিভাষা বা পরিভাষিক শব্দ (Terminology)।

যেমন: Bi-election শব্দটির পরিভাষা বা পারিভাষিক অর্থ হলো- উপ-নির্বাচন। কিন্তু Computer শব্দটির পরিভাষা বা পারিভাষিক শব্দ হলো কম্পিউটার।

তাই বলা যায় যে, পরিভাষা কখনো কোনো ভাষায় মূলশব্দ, কখনো আংশিক পরিবর্তিত মূল শব্দ আবার কখনো বা অনূদিত শব্দ। আর বিদেশি শব্দের সাথে পারিভাষিক শব্দের সাথে পার্থক্য হল- বিদেশি শব্দগুলো পূর্বে গৃহীত হয়েছে আর পারিভাষিক শব্দগুলো ব্যবহৃত হয় নতুন রূপে বিশেষ অর্থে।

আরও পড়ুন:

ণ-ত্ব বিধানের কয়েকটি নিয়ম

বাংলা শব্দে শ, ষ, স-এর ব্যবহারের নিয়ম

জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক প্রণয়ন কমিটির বানানের নিয়ম

পরিভাষা বা পারিভাষিক শব্দের প্রয়োজনীয়তা :

সময়ের স্রোতধারায় মানুষের চিন্তা-চেতনা, প্রত্যয়-প্রত্যাশা ও আবেগ-অনুভূতি যেমন বহুমুখী ও বহুমাত্রিক রূপ লাভ করছে তেমনি প্রত্যেক ভাষায় যুক্ত হচ্ছে নানা রূপের নতুন শব্দ। মানুষ বিভিন্ন প্রয়োজন মেটাতে এবং নানা বিষয়ে জ্ঞানার্জনের জন্য কখনো সরাসরি আবার কখনো পরিবর্তন বা অনুবাদ করে বিদেশি শব্দ নিজের ভাষায় পরিভাষা বা পারিভাষিক শব্দ হিসেবে ব্যবহার করছে। সঙ্গত কারণেই পরিভাষা বা পরিভাষিক শব্দের পয়োজনীয়তা অনস্বীকার্য। নিম্নে পরিভাষা বা পরিভাষিক শব্দের প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরছিঃ

১.জ্ঞান-বিজ্ঞানের নতুন নতুন বিষয় বা বস্তুর সঙ্গে পরিচিতি ও জ্ঞান লাভের জন্য।

২.কোনো বিষয় বা বস্তুকে সার্বিক ও সহজভাবে বোঝা এবং বোঝানোর জন্য।

৩. ভাষার শব্দভাণ্ডার বৃদ্ধি ও সমকালীন করার জন্য।

৪.ভাষার ভাব-প্রকাশক ক্ষমতা বৃদ্ধি করার জন্য ।

৫. অনুবাদের সময় শব্দের দুষ্প্রাপ্যতা ও কাঠিন্য দূর করার জন্য এবং

৬.ভাষার গতিশীলতা ও সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য পরিভাষা বা পারিভাষিক শব্দের বিকল্প নেই।

তাই বলা যায় পরিভাষা বা পরিভাষিক শব্দ একটি ভাষার অমূল্য সম্পদ বিশেষ।

 

আরও পড়ুন:

য-ফলা, র-ফলা ও ল-ফলা উচ্চারণের নিয়ম

####

এই পোস্ট থেকে আমরা পরিভাষা বা পারিভাষিক শব্দ কাকে বলে? পারিভাষিক শব্দের প্রয়োজনীয়তা কী? সম্পর্কে জানতে পারলাম। পোস্টটি কেমন লাগলো আমাদের কমেন্ট করে জানান। ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button